রবিবার, ২ অক্টোবর ২০২২
১৭ আশ্বিন ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

খুলনা জেলা ও মহানগর যুব মহিলা লীগের সম্মেলন আগামীকাল

নিজস্ব প্রতিবেদক | আপডেট: শুক্রবার, সেপ্টেম্বর ৯, ২০২২

খুলনা জেলা ও মহানগর যুব মহিলা লীগের সম্মেলন আগামীকাল
নানামুখী আলোচনা, জল্পনা- কল্পনার পরে অবশেষে খুলনা জেলা ও মহানগর যুব মহিলা লীগের সম্মেলন হতে যাচ্ছে, ৯০ দিনের মধ্যে সম্মেলন করার লক্ষে সম্মেলন প্রস্তুতি কমিটি গঠন হলেও প্রায় সাত মাসের মাথায় খুলনা ইউনাইটেড ক্লাবে ১০ সেপ্টেম্বরে সম্মেলন হতে যাচ্ছে। জানা গেছে, জেলা ও নগর শাখার সম্মেলনে খুলনা শাসক দলের রাজনৈতিক অভিভাবক হিসাবে স্বীকৃত বঙ্গবন্ধু পরিবারের পছন্দকে প্রাধান্য দিয়ে কমিটি ঘোষণা করা হবে, যুবলীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য, বঙ্গবন্ধুর ভ্রাতুষ্পুত্র শেখ সোহেল গন- মাধ্যমকে বলেছেন, আগামীতে মেয়র ও জাতীয় নির্বাচন, তাই পরিচ্ছন্ন, ত্যাগী, দলে ও সমাজে সামাজিন অবস্থান আছে, গ্রহণযোগ্যতা আছে, যাদের দেখে সাধারন মানুষ বা ভোটাররা বিভ্রান্ত হবে না, যাদের বিরুদ্ধে মাদক ব্যবসা বা অন্য অসামাজিক অভিযোগ আছে- তাদেরকে বাদ দিয়েই কমিটি করা হবে,  স্বচ্ছ, ক্লিন ইমেজের নেত্রীরাই পদ- পদবীতে আসবেন। 
প্রাপ্ত সুত্রগুলি বলছে, জেলা সভাপতি হিসাবে বর্তমান সভাপতি অ্যাড সেলিনা হোসেন পিয়া, অ্যাড জেসমিন জলি প্রার্থী। সূত্র মতে,একজন নেত্রীর বিরুদ্ধে জাল স্ট্যাম্প, বিচার কাজের অন্যান্য গোপন নথিসহ পুলিশের হাতে ধরা পড়া, বিএনপি ও জামাত পরিবারের সাথে আত্মীয়তার অভিযোগ ওপেন সিক্রেট। খুলনা জেলা আওয়ামীলীগের প্রয়াত নেতা এস এম মোস্তফা রশিদি সুজার হাত দিয়ে রাজনৈতিক হাতে খড়ি নেয়া সেলিনা পিয়াকে অনেক প্রভাবশালী মহল সমর্থন দিচ্ছেন অন্যদিকে, সাধারন সম্পাদক পদে দিঘলিয়া উপজেলার ভাইস চেয়ারম্যান ময়না, বটিয়াঘাটার অ্যাড পলাশি, রুপসা থেকে নির্বাচিত সদস্য আকলিমা তুলির নাম শোনা যাচ্ছে। প্রার্থীদের সবাই শেখ বাড়ির আনুকল্য নেয়ার চেষ্টা করছে। জেলায় লবিং, গ্রুপিং তুলনা মুলক ভাবে অনেক কম অন্য দিকে ভয়ংকর এক পরিস্থিতি খুলনা নগর যুব মহিলা লীগের সম্মেলন সামনে রেখে বিরাজ করছে। দলের নেত্রীদের নিজেদের মধ্যে হিংসা, হানাহানি, গ্রুপিং, কাদা ছোঁড়াছুড়ি, প্রতিহিংসা বিদ্যমান। খালিশপুরে একটি ওয়ার্ড কমিটির সভা করতে গিয়ে ও দলের নগর কার্যালয়ে অভ্যন্তরীণ কোন্দলের বহিঃপ্রকাশ ঘটলে নগর আওয়ামিলিগের শীর্ষ নেতারা ক্ষুদ্ধ ও প্রচন্ড ভাবে বিরক্ত হন। সম্মেলন প্রস্তুতি কমিটি হবার পর থেকেই নগর কমিটিতে কোন্দল বিদ্যমান। জানা গেছে, আহবায়ক কমিটির সবাই কম বেশি প্রার্থী, বর্তমান আহবায়ক অ্যাড করবী আবারও সভাপতি প্রার্থী। নগর কমিটির এক শীর্ষ নেত্রীর  বিরুদ্ধে মাতৃত্বকালীন ভাতা, বয়স্ক ভাতা, চাকরি দেবার নাম করে টাকা আত্মসাৎ, বিভিন্ন মেয়েদের কাছ থেকে টাকা ধার নিয়ে ফেরত না দেয়ার অভিযোগ রয়েছে, দলের মেয়েরা অভিযোগ করেছেন, পাওনাদারদের কারনে তিনি দিন রাতের অধিকাংশ সময়ে নিজের ব্যক্তিগত ফোন বন্ধ রাখেন, অন্য দিকে সম্মেলন প্রস্তুতি কমিটির সদস্য সচিবের বিরুদ্ধে চেক প্রতারনার বেশ কয়েকটি মামলা চলমান। অতি সম্প্রতি গত পয়লা সেপ্টেম্বরেও খুলনার আদালতে একটি চেক জালিয়াতির মামলা দায়ের হয়েছে যদিও সদস্য সচিব আইরিন রায়হান চৌধুরী নিপাও সভাপতি প্রার্থী, এর বাইরে সাবেক ভিপি আফরোজা জেসমিন বিথিও সভাপতি প্রার্থী, অন্যদিকে দলের মধ্যে সিনিয়র নেত্রি নাজনিন চৌধুরী বিউটি, নাসরিন ইসলাম তন্দ্রা, রিমা আখতার, দিপ্তি বিশ্বাস, বানু আখতার সাধারন সম্পাদক প্রার্থী।এই বিষয়ে শেখ সোহেল বলেছেন,  বিতর্কিত হয়েছেন বা যাদের নামে বদনাম আছে এমন নেত্রিদের দায়িত্বে আসার কোনও সম্ভবনা নেই, একটি ক্লিন ইমেজের কমিটি আমরা জেলা ও নগরবাসীর জন্য আমরা উপহার দেব। সম্মেলনে প্রধান অতিথি থাকবেন খুলনা সিটি মেয়র তালুকদার আব্দুল খালেক। সম্মেলন উদ্বোধন করবেন সংগঠনের কেন্দ্রীয় সভাপতি, সাবেক এমপি নাজমা আখতার। 
0 Comments