রবিবার, ২ অক্টোবর ২০২২
১৭ আশ্বিন ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

দুর্ভিক্ষের ঝুঁকিতে বিশ্ব, ‘ক্ষুধার সুনামি’ আসন্ন: জাতিসংঘ

আন্তর্জাতিক ডেস্ক | আপডেট: শুক্রবার, সেপ্টেম্বর ১৬, ২০২২

দুর্ভিক্ষের ঝুঁকিতে বিশ্ব, ‘ক্ষুধার সুনামি’ আসন্ন: জাতিসংঘ
ভয়াবহ মাত্রার এক ‘বৈশ্বিক জরুরি অবস্থার’ মুখোমুখি হয়েছে বিশ্ব। যেখানে কমপক্ষে সাড়ে ৩৪ কোটি মানুষ অনাহারের দিকে ধাবিত হচ্ছে এবং নতুন করে আরও ৭ কোটি মানুষকে খাদ্য নিরাপত্তাহীনতার দিকে ঠেলে দিয়েছে ইউক্রেন যুদ্ধ। এসব তথ্য জানিয়ে, বিশ্বজুড়ে একাধিক দুর্ভিক্ষের ঝুঁকি রয়েছে এবং ‘ক্ষুধার সুনামি’ দেখা দিতে পারে বলে সতর্ক করেছে জাতিসংঘ।

জাতিসংঘের বিশ্ব খাদ্য কর্মসূচির (ডব্লিউএফপি) নির্বাহী পরিচালক ডেভিড বিসলে বৃহস্পতিবার (১৫ সেপ্টেম্বর) জাতিসংঘ নিরাপত্তা পরিষদকে বলেন, বিশ্বের ৮২টি দেশের সাড়ে ৩৪ কোটি মানুষ তীব্র খাদ্য নিরাপত্তাহীনতার সম্মুখীন। খবর আল জাজিরার।   

তিনি বলেন, এটি অবিশ্বাস্যভাবে উদ্বেগজনক যে ৪৫টি দেশের পাঁচ কোটি মানুষ তীব্র অপুষ্টিতে ভুগছে এবং তারা ‘দুর্ভিক্ষের দরজায় কড়া নাড়ছে’। ক্রমবর্ধমান সংঘাত, অর্থনীতিতে মহামারির প্রভাব, জলবায়ু পরিবর্তন, জ্বালানির দাম বৃদ্ধি এবং ইউক্রেন-রাশিয়া যুদ্ধের কারণে আগে যা ‘ক্ষুধার ঢেউ’ ছিল, এখন তা ‘ক্ষুধার সুনামি’তে পরিণত হয়েছে।  

বিসলে বলেন, গত ২৪ ফেব্রুয়ারি রাশিয়া তার প্রতিবেশী দেশ ইউক্রেনে ‘আক্রমণ’ চালানোর পর খাদ্য, জ্বালানি এবং সারের দাম বৃদ্ধি ৭ কোটি মানুষকে অনাহারের কাছাকাছি নিয়ে গেছে। 

জুলাই মাসে রাশিয়ার হাতে অবরুদ্ধ কৃষ্ণ সাগরের ৩টি বন্দর থেকে ইউক্রেনীয় শস্য পাঠানোর অনুমতি দেয়া এবং বিশ্ব বাজারে রাশিয়ান সার ফিরিয়ে আনার প্রচেষ্টা অব্যাহত থাকা সত্ত্বেও, ‘এ বছর একাধিক দুর্ভিক্ষের একটি বাস্তব এবং বিপজ্জনক ঝুঁকি রয়েছে’ বলেও সতর্ক করেন ডব্লিউএফপির নির্বাহী পরিচালক। 

দ্রুত উদ্যোগ না নিলে বর্তমান খাদ্য মূল্য সংকট ২০২৩ সালে খাদ্য প্রাপ্যতা সংকটে পরিণত হতে পারে বলেও সতর্ক করেন ডেভিড বিসলে। 
0 Comments