শুক্রবার, ৯ ডিসেম্বর ২০২২
২৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

শূন্যরেখায় মাইন বিস্ফোরণে রোহিঙ্গা কিশোর নিহত

অনলাইন ডেস্ক | আপডেট: রবিবার, অক্টোবর ২, ২০২২

শূন্যরেখায় মাইন বিস্ফোরণে রোহিঙ্গা কিশোর নিহত
বান্দরবানের তুমব্রু সীমান্তের শূন্যরেখায় মাইন বিস্ফোরণে রোহিঙ্গা কিশোর নিহত হয়েছে। এ সময় আহত হয়েছেন আরেক যুবক। রোববার (২ অক্টোবর) সকালে তুমব্রু সীমান্তের বিপরীতে মিয়ানমারের অভ্যন্তরে এ ঘটনা ঘটে।

নিহত রোহিঙ্গার নাম ওমর ফারুক (১৭)। সে শূন্যরেখার ৩ নম্বর ব্লকের মো. আইয়ুবের ছেলে। আহত মো. সাহাবুল্লাহ (২৮) ১০ নম্বর ব্লকের আবুল হোসেনের ছেলে।

শূন্যরেখার ৩ নম্বর ব্লকের মাঝি (দলনেতা) মো. রহিম বলেন, তুমব্রু সীমান্তের বিপরীতে সীমানা পিলার ৩৪-৩৫ এর মধ্যবর্তী শূন্য লাইন থেকে দেড় কিলোমিটার পূর্বে মিয়ানমারের অভ্যন্তরে এ ঘটনা ঘটে। মিয়ানমারের সেনাবাহিনীর পুঁতে রাখা মাইন বিস্ফোরণে ওই রোহিঙ্গা কিশোরের দুই পা উড়ে যায়। এতে ঘটনাস্থলেই তার মৃত্যু হয়। এ সময় আহত হন এক রোহিঙ্গা যুবক। পরে হতাহতদের শূন্যরেখা নিয়ে আসা হয়। সন্ধ্যায় জানাজা শেষে শূন্যরেখার করবস্থানে ওই কিশোরকে দাফন করা হয়।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক রোহিঙ্গা নেতা বলেন, মূলত দুজন পাহাড়ি পথ বেয়ে লুকিয়ে মাছ শিকার করতে মিয়ানমারের ভেতরে প্রবেশ করে। তবে মিয়ানমার সেনাবাহিনীর পুঁতে রাখা মাইন বিস্ফোরণে এ হতাহতের ঘটনা ঘটে।

নাইক্ষ্যছড়ি ৩-নং ঘুমধুম ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান একেএম জাহাঙ্গীর আজিজ বলেন, তিনি কোনারপাড়ার রোহিঙ্গা স্থলমাইন বিস্ফোরণে মারা যাওয়ার খবরটি  শুনেছেন। নিহত কিশোরের দু-পা নাকি উড়ে গেছে। অতিরিক্ত রক্তক্ষরণে সে মারা যায় বলে শুনেছি।

এর আগে গত ১৬ সেপ্টেম্বর দুপুরে চোরাই পথে গরু আনতে গিয়ে সীমান্তের হেডম্যানপাড়ার যুবক অন্ন্যাই তংচঙ্গা (২৮) গুরুতর আহত হয়। মাইন বিস্ফোরণে তার এক পা উড়ে গিয়েছিল।
0 Comments