মঙ্গলবার, ২৩ জুলাই ২০২৪
৮ শ্রাবণ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

বাংকের চাকরি ছেড়ে ফ্রিল্যান্সিং, এখন বিশ্বমঞ্চে

নিজস্ব প্রতিবেদক | আপডেট: শনিবার, জুন ১৫, ২০২৪

বাংকের চাকরি ছেড়ে ফ্রিল্যান্সিং, এখন বিশ্বমঞ্চে
আবু হেনা মুক্তিঃ
"পড়ালেখা করে যে, গাড়ি-ঘোড়া চড়ে সে" ছোটবেলায় মা দাদীরা এমন ছড়া বলে আমাদের লেখাপড়ায় আগ্রহী করে তুলতো। কিন্তু এই গাড়ি ঘোড়ায় চড়াটা যেন শুধু চাকরি পাওয়ার উপরই নির্ভর করে। আর চাকরি না পেলে হয় বিপরীত। 

কিন্তু এমন লোভনীয় চাকরি ছেড়ে ফ্রিল্যান্সিং কে বেছে নিয়েছিলেন পুলক মজুমদার। তিনি জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয় থেকে গ্রাজুয়েশন সম্পন্ন  করে যোগ দিয়েছিলেন ইউসিবি ব্যাংকে প্রবেশনারি অফিসার হিসেবে। এমন চাকরি ছেড়েও তিনি বেছে নিয়েছিলেন ফ্রিল্যান্সিং। 

আজ তিনি যাচ্ছেন সুদূর ফ্রান্সের মন্টপেলিয়ার শহরে আসন্ন "শান্তি এবং টেকসই ভবিষ্যতের যুব সম্মেলনে" অংশগ্রহণের জন্য। মর্যাদাপূর্ণ এই সম্মেলন ফ্রান্সের মন্টপেলিয়ারে অনুষ্ঠিত হবে ২২ জুলাই থেকে ২৬ জুলাই, ২০২৪ এবং ৩৪ টির অধিক দেশে থেকে ৪০০ জনের বেশি বিশ্ব নেতা এবং যুবক এই অনুষ্ঠানে যোগ দেবেন। দ্য ইনস্টিটিউট অফ পাবলিক পলিসি অ্যান্ড ডিপ্লোমেসি রিসার্চ (আইপিপিডিআর) এবং ফ্রান্সের মন্টপেলিয়ারের মিউনিসিপ্যাল অফিস দ্বারা সম্পূর্ণ অর্থায়নে এই মর্যাদাপূর্ণ ইভেন্টে তাকে বৈশ্বিক মঞ্চে বাংলাদেশের প্রতিনিধিত্ব করতে দেখা যাবে। এই সম্মেলনের পৃষ্ঠপোষকতা করবে ইউনেস্কো সহ অন্য চারটি স্বনামধন্য সংস্থা। 

বিশ্বব্যাপী শিক্ষা, গবেষণা, জলবায়ু ও বিশ্ব শান্তি উন্নয়ন ছাড়াও বিভিন্ন আর্থসামাজিক ও সেবামূলক কাজে অংশগ্রহণ করে থাকে বেসরকারি অলাভজনক প্রতিষ্ঠান ‘আইপিপিডিয়ার’। গতবছর বাংলাদেশি চলচ্চিত্র অভিনেতা জায়েদ খানসহ বিশ্বের বিভিন্ন দেশের ৪০ জন ব্যক্তিকে হিউমেনিটারিয়ান অ্যাওয়ার্ড দিয়েছিলেন এই প্রতিষ্ঠানটি। 

গত আড়াই বছর ধরে, পুলক একটি অনলাইন ফ্রিল্যান্সিং প্ল্যাটফর্ম Fiverr-এর মাধ্যমে IPPDR-এর সাথে একজন গবেষক এবং কোর্স নির্মাতা হিসেবে কাজ করছেন। তার কঠোর পরিশ্রম এবং প্রতিভা আইপিপিডিআরের প্রতিষ্ঠাতা ডক্টর অ্যান্ড্রিস বেসের নজর কেড়েছিল এবং তার সম্ভাবনার স্বীকৃতি হিসেবে তাকে এই অবিশ্বাস্য সুযোগ করে দিয়েছেন। এই অবিশ্বাস্য সুযোগ তাকে একটি টেকসই ভবিষ্যৎ গঠনে বিশ্ব নেতাদের সাথে যোগ দিতে ও কাজ করতে সুযোগ করে দিয়েছে। 

পুলকের মতে এই কাজে একাগ্রতার সাথে লেগে থাকলে এই ইন্টারনেট-ভিত্তিক বিশ্বে এটির একটি ভাল সম্ভাবনা রয়েছে। তবে ভালো ইংরেজি জানা এবং যোগাযোগ দক্ষতা থাকলে বাড়তি সুবিধা পাওয়া যায় এবং সফলতার সম্ভাবনা অনেক বেড়ে যায়। এটার পাশাপাশি নিজের অন্য ব্যবসা বা কাজ গুলোও করা যায়। তিনি যেমন “Learn with Pulak” নামে একটি ইউটিউব চ্যানেল এবং ফেসবুক পেজের মাধ্যমে সবাইকে ইংরেজি শেখাচ্ছেন। 

পুলকের যাত্রাটি এটি প্রমাণ করে যে বিকল্প পথগুলিও অসাধারণ গন্তব্যে নিয়ে যেতে পারে। একটি গতানুগতিক চাকরি থেকে ফ্রিল্যান্সিংয়ে তার রূপান্তর দেখায় যে দৃঢ় সংকল্প এবং সৃজনশীলতার সাথেও কেউ বিশ্বে মঞ্চে একটি অনন্য স্থান তৈরি করতে পারে।
0 Comments